অক্টোবর ২২, ২০১৯ ২:৫৫ পূর্বাহ্ণ
সর্বশেষ
ইসলামকে কলঙ্কিত করতে বাংলাদেশকে নিয়ে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ইসলামকে কলঙ্কিত করতে বাংলাদেশকে নিয়ে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ইসলামকে কলঙ্কিত করার জন্য জঙ্গির নামে বাংলাদেশকে নিয়ে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে বলে মন্তব্য করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ইসলামের নামে কালিমা লেপন করে একের পর এক মুসলিম দেশগুলোকে সন্ত্রাসী ও জঙ্গি রাষ্ট্র বানানো হচ্ছে। সিরিয়া, লিবিয়া, ইরাকের মতো বাংলাদেশকেও অকার্যকর রাষ্ট্র করার আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে। কওমি মাদরাসা শিক্ষা সনদের সরকারি স্বীকৃতি প্রদান উপলক্ষে গতকাল শনিবার বিকেলে ময়মনসিংহ টাউন হলের অ্যাডভোকেট তারেক স্মৃতি অডিটরিয়ামে আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, কওমি সদন স্বীকৃতি দেশের আলেম-ওলামারা যেভাবে চেয়েছেন সেভাবেই প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন। ভারতের দেওবন্দের আলোকে এ স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, যারা ধর্মের নামে অধর্মের কাজ করছে, যারা ধর্ম ব্যবসা করছে তাদের বিরুদ্ধে আলেম সমাজকে কথা বলতে হবে রুখে দাঁড়াতে হবে। এ সময় ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইউসুফ খান পাঠান, জেলা প্রশাসক খলিলুর রহমান, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম, জাতীয় দ্বীনি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান আল্লামা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, আল্লামা আজহার আলী আনোয়ার শাহ, আল্লামা আবদুল কুদ্দুস, মুফতি রুহুল আমিন, হাফেজ মাওলানা মাজহারুল ইসলাম, বড় মসজিদের খতিব আবদুল হক ও মুফতি তাজুল ইসলাম কাসেমী।
কওমি মাদরাসার স্বীকৃতি প্রধানমন্ত্রীর আগেরই অঙ্গীকার: কওমি মাদরাসাকে স্বীকৃতি দেয়ার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর আগেরই অঙ্গীকার ছিল, সেই লক্ষ্যে তিনি কয়েক বছর আগে একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছিলেন। সেই কমিটির প্রধান ছিলেন হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কমিটির রিপোর্ট পর্যালোচনা করে কওমি মাদরাসা শিক্ষাকে স্বীকৃতি দেন বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। গতকাল শনিবার সকালে সাভার সিটি সেন্টারের সামনে বেদে সম্প্রদায়ের তৈরি পোশাক কারখানার শোরুম উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।
বেদে সম্প্রদায়ের উত্তরণ নামের শোরুম উদ্বোধকালে মন্ত্রীর সঙ্গে পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমান, ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার শাহ মিজান শফিউর রহমানসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে একই দিন হিজড়াদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় মাস্টার প্লাজায় হিজড়াদের পরিচালিত উত্তরণ বিউটি পার্লার ও বাদশা টাওয়ার উদ্বোধন করতে এসে তিনি এ মতবিনিময় করেন।
এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ধামসোনা ইউপি চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলামসহ আশুলিয়া আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top