সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯ ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ
সর্বশেষ
যানজটে স্থবির ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক

যানজটে স্থবির ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ০৮ সেপ্টেম্বর : পবিত্র ঈদুল আজহার সরকারি ছুটি ১১ সেপ্টেম্বর থেকে। কিন্তু এর আগে শুক্রবার ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি। ফলে বৃহস্পতিবার শেষ কর্মদিবস। অনেকেই এদিন অফিসে হাজিরা দিয়ে রাজধানী থেকে ফিরবেন বাড়ির পানে। কিন্তু এরই মধ্যে সড়কে দেখা দিয়েছে তীব্র যানজট। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন ঘরমুখো মানুষেরা। বিশেষ করে যানজটে স্থবির হয়ে পড়েছে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ও বঙ্গবন্ধু সেতু জাতীয় মহাসড়ক। বৃহস্পতিবার ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে প্রায় ৪০ কিলোমিটার তীব্র যানজট লেগে আছে। যানজট নিরসনে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী হিমশিম খাচ্ছে। তাদের সঙ্গে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারাও মহাসড়কে কাজ করছেন। তাতেও পরিস্থিতির কোনো উন্নতি হচ্ছে না। এরআগে মঙ্গলবার দিনগত রাত থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ও বঙ্গবন্ধু সেতু জাতীয় মহাসড়কে ভয়াবহ যানজট সৃষ্টি হয়। টাঙ্গাইলের করটিয়া থেকে মির্জাপুর এবং গাজীপুর জেলার চন্দ্রা পর্যন্ত ৪৫ কিলোমিটার এলাকার দুইপাশে যানজটে স্থবির হয়ে পড়ে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা এ যানজটে কর্মস্থলে যাওয়া ও ঈদে বাড়ি ফেরা যাত্রীদের চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে। মহাসড়কের নাটিয়াপাড়া, জামুর্কি, পাকুল্যা, শুভুল্লা, ইচাইল, গোড়াইল নয়াপাড়া, মির্জাপুর বাইপাস, বাওয়ার কুমারজানি, দেওহাটা, ধেরুয়া, সোহাগপাড়া, গোড়াই, ক্যাডেট কলেজ ও বোর্ড এলাকায় যানজট ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। গোড়াই হাইওয়ে থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান যুগান্তরকে জানান, উত্তরাঞ্চলের ২২টি জেলার যানবাহন ছাড়াও টাঙ্গাইল, জামালপুর, শেরপুর জেলার গরুবাহী ট্রাক ও যানবাহন এখন ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক এবং বঙ্গবন্ধু সেতু জাতীয় মহাসড়ক দিয়ে যাতায়াত করছে। বিপুল সংখ্যক যানবাহনের চাপে এই মহাসড়কে যানজট দেখা দিয়েছে। এছাড়া ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে চার লেনের কাজ, কয়েকটি, ফ্লাইওভারের কাজ, দুর্ঘটনা এবং গাড়ি বিকল হয়ে পড়ায় যানজট সৃষ্ট হয়েছে। যানজট নিরসন করতে হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি ট্রাফিক পুলিশ, জেলা ও থানা পুলিশ, র‌্যাব, আনসার, জেলা প্রশাসন ও এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ বিভিন্ন সংস্থার লোকজন কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানান খলিলুর রহমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top